Featured

এই সরস্বতী মন্দিরেই পড়া হয় নামাজ

এই সরস্বতী মন্দিরেই পড়া হয় নামাজ তিস্তা নিউজ ওয়েব ডেস্ক: অসহিষ্ণুতা বিতর্কে তোলপাড় যখন গোটা দেশ, তখন বসন্ত পঞ্চমীতে একসঙ্গে ধর্মীয় আচার পালন করলেন হিন্দু মুসলমান উভয় সম্প্রদায়ের মানুষই। সহিষ্ণুতার এই অদ্ভুত সুন্দর নিদর্শন দেখা গেল মধ্যপ্রদেশে।
মধ্যপ্রদেশের ভোজশালায় হিন্দুদের বসন্ত পঞ্চমীর পুজো এবং মুসলমানদের জুম্মার নামাজ সম্পন্ন হল একইসঙ্গে এবং শান্তিপূর্ণ ভাবে।
একদিকে সূর্যোদয় থেকে দুপুর বারোটা পর্যন্ত হিন্দু সম্প্রদায় বসন্ত পঞ্চমীর সরস্বতী পুজো করেছেন, তারপর বেলা তিনটে পর্যন্ত মুসলমানরা জুম্মার নামাজ আদায় করেছেন।
প্রায় হাজার বছরের পুরনো এই ভোজশালা সৌধটি বর্তমানে ভারতীয় পুরাতত্ত্ব বিভাগের নিয়ন্ত্রণাধীন। সৌধের ইতিহাস নিয়ে রয়েছে ঢের বিতর্ক। হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা মনে করেন এটি হল দেবী সরস্বতীর সবচেয়ে প্রাচীন মন্দির। অপরদিকে ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের কাছে এই সৌধ কামাল মৌলানার দরগা।
ধর্মীয় বিতর্কের কথা মাথায় রেখেই এই সৌধতে রোজকার পুজোপাঠ এবং নামাজ উভয়ই বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে প্রশাসনের তরফে।
তবুও দুই সম্প্রদায়ের মানুষই যাতে নিজেদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান করতে পারেন, তার জন্য প্রতি মঙ্গলবার হিন্দুদের পুজো দিতে দেওয়া হয় আর মুসলমানদের শুক্রবারে নামাজ পড়তে দেওয়া হয়।
সপ্তাহের অন্যান্য দিন যে কেউ প্রবেশ করতে পারলেও পুজো দেওয়া বা নামাজ পড়া যায় না এই ঐতিহাসিক সৌধে।
কিন্তু এবছর বসন্ত পঞ্চমীর তিথি শুক্রবারে হওয়ায় কিছু হিন্দু সংগঠন সেদিন সৌধে দেবী সরস্বতীর আরাধনা করার অনুমতি চান। অন্যদিকে শুক্রবার জুম্মাবার হওয়ায় স্বভাবতই এদিন নামাজ পাঠের কথা ছিল মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের।
শুক্রবারে বসন্ত পঞ্চমীর দিন পড়ায় দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে অশান্তি বাধার সম্ভাবনার কথায় সবাই আশা করেছিলেন। পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে, এমন ভেবে, পুরো সৌধটিকে একরকম দুর্গ বানিয়ে ফেলা হয়েছিল, মোতায়েন করা হয়েছিল প্রচুর পুলিশ।
কিন্তু সব সমস্যার অবসান ঘটিয়ে, নিজেদের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রেখে একসঙ্গে ধর্ম পালন করলেন হিন্দু মুসলিম ভাইয়েরা। তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন(ভারত)

Show More

News Desk

তিস্তা নিউজের নিউজ রুম থেকে সমস্ত বিভাগসহ বাংলাদেশের সর্বশেষ সংবাদ প্রকাশ করা হয়। আপনি যদি তিস্তানিউজ ২৪.কম এ প্রকাশের জন্য আমাদের ট্রেন্ডিং নিউজ প্রেরণ করতে চান তবে আসুন এখনই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আপনার নিউজটি আমাদের নিউজ রুম থেকে নিউজ ডেস্ক হিসাবে প্রকাশিত হবে। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদান্তে- আব্দুল লতিফ খান, সম্পাদক মন্ডলির সভাপতি।

Related Articles

Back to top button
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker