বিনোদন

ছবি মুক্তির পর টেনশন কেটে গেছে

তিস্তা নিউজ বিনোদন ডেস্ক: গত শুক্রবার দেশব্যাপী মুক্তি পেয়েছে বিদ্যা সিনহা মিম অভিনীত নতুন ছবি ব্ল্যাক। এর সপ্তাহখানেক আগে যৌথ প্রযোজনার ছবিটি পশ্চিমবঙ্গে মুক্তি পেয়েছিল। এই ছবিও সামনের পরিকল্পনা নিয়ে মিমের সাথে কথা বলেছেন আলমগীর কবিরhttp://tistanews24.com/wp-content/uploads/2015/12/69872.jpg ঈদের পর চার মাস বিরতি দিয়ে মুক্তি পেল মিমের নতুন ছবি। দর্শকসাড়া কেমন পাচ্ছেন?
অনেক ভালো। শুক্রবার ব্ল্যাক রিলিজের পর থেকে প্রযোজক, পরিচালকসহ এর সাথে সংশ্লিষ্ট অনেকের সাথে আমার কথা হয়েছে, সবাই প্রশংসা করেছেন। প্রেক্ষাগৃহের মালিকেরা জানিয়েছেন, গত সাত-আট মাসে তারা এ ধরনের ছবি পাননি। লক্ষাধিক টিকিট বিক্রি হয়েছে এমন প্রেক্ষাগৃহ থেকে আমাকে ফোন করে উইশ করেছে। আমি দর্শকদের কাছে কৃতজ্ঞ, তারা হলে গিয়ে সিনেমাটি দেখছেন।
ঢাকা ও কলকাতায় একই দিনে ব্ল্যাক মুক্তি পাওয়ার কথা থাকলেও এক সপ্তাহ ব্যবধান হয়েছে। এতে কি টেনশন হচ্ছিল?
কলকাতায় ছবিটি মুক্তি পেয়েছে ২৭ নভেম্বর। ওই দিনে ছবিটি আমাদের এখানেও মুক্তি পেলে ভালো হতো। না পাওয়ায় ভীতিকর একটা অবস্থার সৃষ্টি হয়েছিল। তবে টেনশন যা ছিল ছবি মুক্তির পর কেটে গেছে। যখন শুনি দর্শক হলে সিট পাচ্ছেন না, পরবর্তী শো দেখার জন্য তিন ঘণ্টা অপেক্ষা করছেন, তখন মনে হয়, আমি তাদের কাছে যেতে পেরেছি, তাদের ভাবনার জগতে স্থান পেয়েছি। আমার প্রাপ্তির জায়গাটা এখানেই। ভালো ছবি দেখার জন্য দর্শক অপেক্ষা করে, তার প্রমাণ ব্ল্যাক।
এই ছবির সাফল্য আমাদের দেশীয় চলচ্চিত্রে সামগ্রিক কোনো পরিবর্তন আসবে বলে মনে হয় আপনার?
সামগ্রিক কথাটা কিন্তু অনেক বড়। এই ফলাফলটা কিন্তু একটি ছবির সাফল্য দিয়ে বিচার করলে চলবে না। নিয়মিতভাবে ভালো ছবি মুক্তি পেতে হবে। দর্শকদের মধ্যে এই বিশ্বাসটা ফিরিয়ে আনতে হবে যে, এই ছবির মধ্যে একটা নির্মল বিনোদন পাওয়া যাবে, সিনেমায় খুঁজে পাওয়া যাবে দর্শকদের নিজের ভাবনা। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে, সিনেমার সাথে সংশ্লিষ্ট সব বিষয়ের উন্নয়ন ঘটাতে হবে। প্রযোজক, পরিচালক, অভিনেতা, অভিনেত্রীসহ সংশ্লিষ্ট কলাকুশলী সবাইকে ভাবতে হবে, এই ছবিটি আমার এবং সবাইকে সাথে নিয়ে পরিবেশটা ভালো করতে হবে।
পশ্চিমবঙ্গ থেকে কেমন সাড়া পেয়েছেন?
ওই খানে প্রথম সপ্তাহেই ১০০-এর বেশি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছিল ব্ল্যাক। ছবির অভিনয়শিল্পী রজতাভ দত্ত ও প্রযোজকের সাথে কথা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে শুনেছি আমার অভিনয় ওখানে প্রশংসিত হয়েছে।
ছবির নায়ক সোহম সহশিল্পী হিসেবে কেমন?
সোহম অনেক ভালো অভিনেতা। ব্যক্তি হিসেবেও অনেক মিশুক। শুটিংয়ের সময় অনেক মজা হয়েছে। কোনো একটা বিষয় নিয়ে আটকে গেলে শুটিংয়ের সেটে সে খুব সহজে তার সমাধান বের করে দিতো। ভবিষ্যতেও তার সাথে কাজ করতে পারলে ভালো লাগবে।
ভবিষ্যতের কথা বললেন, শিগগিরই কি আপনি আবার সোহমের সাথে জুটি বাঁধার কোনো সম্ভাবনা আছে?
আমি বলেছি অভিনয় করতে চাই। সম্ভাবনা আছে কি নাই সেটা এখন বলা যাবে না। তবে সম্প্রতি নতুন একটি যৌথ প্রযোজনার ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছি। যার শুটিং শুরু হবে আগামী ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি থেকে। এখন নায়ক বা পরিচালক কারো নামই বলা যাবে না।


নতুন বছর দরজায় কড়া নাড়ছে, এ নিয়ে আপনার পরিকল্পনা কি?
নতুন বছরে আমার দু’টি ছবি মুক্তি পাবে। যার মধ্যে রয়েছে তানিয়া আহমেদের গুড মনিং লন্ডন এবং ওয়াজেদ আলী সুমনের সুইটহার্ট। ছবি দু’টি নিয়ে আমি খুব আশাবাদী। সুইটহার্ট মুক্তি পাবে ১২ ফেব্রুয়ারি। তারপরই শুরু হবে আমার নতুন ছবির শুটিং। সব কিছু মিলিয়ে নতুন বছর ভালোই কাটবে আশা রাখি।
এই পর্যন্ত অনেক চরিত্রেই অভিনয় করেছেন, বিশেষ পছন্দের কোনো চরিত্র আছে আপনার?
-আছে। আমি প্রতিবন্ধীর চরিত্রে অভিনয় করতে চাই। রবীন্দ্রনাথের কালজয়ী চরিত্রে নিজেকে সাজাতে চাই। কারণ আমি মনে করি নিজেকে যত বেশি ভাঙতে পারব, অভিনেত্রী হিসাবে নিজেকে তত পোক্ত করতে পারব। তথ্যসূত্র: দৈনিক নয়া দিগন্ত

Show More

News Desk

তিস্তা নিউজের নিউজ রুম থেকে সমস্ত বিভাগসহ বাংলাদেশের সর্বশেষ সংবাদ প্রকাশ করা হয়। আপনি যদি তিস্তানিউজ ২৪.কম এ প্রকাশের জন্য আমাদের ট্রেন্ডিং নিউজ প্রেরণ করতে চান তবে আসুন এখনই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আপনার নিউজটি আমাদের নিউজ রুম থেকে নিউজ ডেস্ক হিসাবে প্রকাশিত হবে। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদান্তে- আব্দুল লতিফ খান, সম্পাদক মন্ডলির সভাপতি।

Related Articles

Back to top button
Close