নীলফামারী

জলঢাকায় অতর্কিত হামলার প্রতিবাদ ও গ্রেফতারের দাবিতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন 

আবেদ আলী, স্টাফ রিপোর্টার: নীলফামারীর জলঢাকায় নিরীহ মানুষকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে বাড়িতে আটক রেখে
নির্যাতনের প্রতিবাদ এবং অপরাধীকে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। গতকাল সন্ধায় এলাকাবাসির আয়োজনে অনুষ্ঠিত ঘন্টাব্যাপীর এই মানববন্ধনে নারী ও পুরুষের পাশাপাশি শিশুরাও অংশগ্রহণ করে।
এ ঘটনাটি উপজেলার কাঠালী ইউনিয়নের উত্তর দেশীবাই পশ্চিম পাড়া গ্রামের।
মানববন্ধনে ফজলার রহমান বলেন, গেল রোববার সকালে আমি জমি রেজিস্ট্রির জন্য দলিল লেখককে সাথে নিয়ে অফিসে যাওয়ার পথে প্রতিবেশী দিপু ও তার লোকজন আমাকে রাস্তা থেকে জোরপূর্বক টেনে হেচঁড়ে তার বাড়িতে নিয়ে যায় সেখানে আটকে রেখে ৩ লক্ষ  টাকা কেড়ে নিয়ে বেধরক মারপিট করলে আমার পরিবারের লোকজন ৯৯৯ নাম্বারে ফোন দিলে পুলিশ ঘটনা স্থলে এসে আমাকে উদ্ধার করে। পরে হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে আমি ঘটনার সাথে জড়িতদের নাম উল্লেখ করে থানায় এজাহার দিয়েছি। আনারুল ইসলাম দিপু’র বিরুদ্ধে দলীয় প্রভাব দেখিয়ে এলাকার সাধারণ মানুষকে বিভিন্নভাবে জিম্মি করে গ্রামের সহজসরল মানুষকে মিথ্যা মামলা ঝামলায জড়িয়ে দিয়ে নিঃস্ব করার এবিষয়ে দলিল লেখক মেহেদী হাসান সরকার ঘটনার সত্যতা শিকার করে জানান আমরা ওইদিন অফিসে যাওয়ার সময় দিপু ও তার লোকজন রাস্তায় আটক করে অতর্কিত হামলার পর বাড়ীতে আটক রাখে।
মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারীরা জানায়, পুলিশ এখন পর্যন্ত কোন পদক্ষেপ নেয়নি। দিপুর দাপটে দিনে মানববন্ধন করতে সাহস পায়নি, তাই সন্ধায় করতে হলো।
অভিযুক্ত দিপুর সাথে কথা হলে তিনি জানান, ওরাই আমাকে পরিকল্পিত ভাবে আক্রমণ করেন। পরে আমি থানায় খবর দিয়ে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছি।
এ বিষয়ে জলঢাকা থানা পুলিশ এসআই অজয় কুমার সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন, ৯৯৯ নাম্বারে ফোন পেয়ে ফজলার রহমানকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করেছি।

Show More

News Desk

তিস্তা নিউজের নিউজ রুম থেকে সমস্ত বিভাগসহ বাংলাদেশের সর্বশেষ সংবাদ প্রকাশ করা হয়। আপনি যদি তিস্তানিউজ ২৪.কম এ প্রকাশের জন্য আমাদের ট্রেন্ডিং নিউজ প্রেরণ করতে চান তবে আসুন এখনই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আপনার নিউজটি আমাদের নিউজ রুম থেকে নিউজ ডেস্ক হিসাবে প্রকাশিত হবে। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদান্তে- আব্দুল লতিফ খান, সম্পাদক মন্ডলির সভাপতি।

Related Articles

Back to top button
Close