Featured

ডিমলায় দুর্ঘনায় এক শিশুসহ চার জন আহত

http://tistanews24.com/wp-content/uploads/2015/11/Untitled-117.jpgস্টাফ রিপোর্টার:  নীলফামারীর ডিমলায় পাওয়ার টিলারের চাকায় এক শিশু আহতসহ  মোটনসাইকেল ও ব্যাটারীচালিত অটোবাইকের সংঘর্ষে  চার জন মারাত্বক আহত হয়ে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

সোমবার রাত ১০ টায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত  আহত চার জনের মধ্যে তিনজন আশংকা মুক্ত হতে পারেনি।

প্রত্যক্ষদর্শিদের বিবরণে জানাগেছে, সোমবার দুপুর ১২টায় ডিমলা উপজেলার শোভানগঞ্জ গ্রামের জনৈক এফাজ উদ্দিন তার নিজস্ব একটি পাওয়ার টিলার দিয়ে জমিতে হালচাষ করা অবস্থায় টিলারটি ষ্ট্যাট অবস্থায় রেখে বাড়ী যায়।  এ সময় বাবু (১০)  তার চাচাত ভাই শামিমকে নিয়ে চাষকৃত জমিতে গিয়ে পাওয়ার টিলারের কাছে যায়  এবং বড়ভাই টিলারের সিটে বসে হেন্ডেল নারাচারা করতে গিয়ে টিলারটি গতিশীল হয়ে শামিরের উপরে উঠে পড়ে। এতে শামিমকে মারাত্বক আহত অবস্থায় প্রথমে ডিমলা এবং পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

অপর দিকে   ডিমলার রামডাঙ্গা এলাকার নুরুল আমিন কবিরাজের ছেলে হারবাল ডাঃ রুহুল আমিন(৩০)   ডিমলা থেকে মোটরসাইকেল যোগে টুনিরহাট যাচ্ছিল এবং  বিপরীত দিক থেকে যাত্রী নিয়ে  একটি ব্যাটারী চালিত অটোবাইক বেপওয়া গতিতে বাবুরহাট আসার সময় ডিমলা- টুনিরহাট সড়কের নুর বিদ্যনিকেতন স্কুলের সামনের মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। সংঘষে  মোটরসাইকেল ও ইজিবাইকটি চুরমাচার হয়ে যায়। এ দুর্ঘটনায় ডিমলা উপজেলার খগাখড়িবাড়ী (আটঘড়িপাড়া) গ্রামের আবু সালামের পুত্র অটোবাইক চালক হাফিজার রহমান(২২) ও  দোহল পাড়া গ্রামের খোরশেদ আলমের পুত্র অটোবাইক যাত্রী আবু তাহের(৩৫) এবং মটর সাইকেল চালক ডাঃ রুহুল আমিন(৩০)  মারাত্বক আহত হন। তাদেরকে উদ্ধার করে প্রথমে ডিমলা এবং পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সংবাদ পেয়ে ডিমলা থানা পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে আহতদের খোঁজখবর নেন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত আহতদের মধ্যে  ডাঃ রুহুল আমিন বাদে বাকীরা আশংকা মুক্ত নয় বলে জানাগেছে।

 ডিমলা হাসপাতালে আহতদের দেখতে আসা অনেকেই অভিযোগ করে বলেন,  ডিমলার রাস্তা-ঘাট এতই খারাপ যে একটি অটোবাইক অপর একটি অটোবাইককে সাইড দেয়ারমত যায়গা থাকে না। উপরন্ত চালকরা যেভাবে বেপওয়া অটোবাইক  চালায় তাতে দুর্ঘটনা ঘটাই স্বাভাবিক।  অটো বাইক চলাচলে গতিসীমা কেমন হওয়া দরকার তাও তারা জানে না। এ বিষয়ে  প্রশাসনের দৃষ্টি কামনা করেছেন এলাকার সচেতন মহল।

উল্লেখ যে, বেপওয়া অটোবাইক গুলো বেপওয়া চলাচলের কারণে প্রতিদিন ছোটবড় দুর্ঘটনা ঘটেই চলছে। ইতোমধ্যে শিশুসহ মারাও গেছে কয়েকজন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেজাউল করিম জানান,  অটোবাইক গুলো যেন নিয়ম মেনে চলে এ জন্য তাদের সংগঠনের নেতাকে ডেকে পাঠিয়েছি।

Show More

News Desk

তিস্তা নিউজের নিউজ রুম থেকে সমস্ত বিভাগসহ বাংলাদেশের সর্বশেষ সংবাদ প্রকাশ করা হয়। আপনি যদি তিস্তানিউজ ২৪.কম এ প্রকাশের জন্য আমাদের ট্রেন্ডিং নিউজ প্রেরণ করতে চান তবে আসুন এখনই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আপনার নিউজটি আমাদের নিউজ রুম থেকে নিউজ ডেস্ক হিসাবে প্রকাশিত হবে। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদান্তে- আব্দুল লতিফ খান, সম্পাদক মন্ডলির সভাপতি।

Related Articles

Back to top button
Close