Featured

নওগাঁয় কৃষি পাঠাগারের সুফল ভোগ করছেন কৃষকরা

নওগাঁয় কৃষি পাঠাগারের সুফল ভোগ করছেন কৃষকরাগোলাপ খন্দকার নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁর মান্দায় ব্যাক্তি উদ্যোগে গড়ে তোলা হয়েছে কৃষি তথ্য পাঠাগার। কৃষি তথ্য পাঠাগারের মাধ্যমে এলাকার কৃষক সুবিধা ভোগ করছেন। এতে অনেক উপকৃত হচ্ছেন এবং ফসলের পরিমানও বৃদ্ধি পাচ্ছে।

সরজমিনে ঘুরে এমন তথ্য জানা গেছে। কৃষি ক্ষেত্রে উন্নতি করতে হলে কৃষি বিষয়ে জানতে হয়। আর জানতে হলে বই পড়তে হবে। বই পড়ার মাধ্যমে কৃষির উন্নয়ন সম্ভব। কিন্তু কৃষক উপযোগী কোন কৃষি লাইব্রেরী বাংলাদেশে না থাকায় নিজের অভাব থেকে মান্দা উপজেলার কালীগ্রাম গ্রামে লাইব্রেরী তৈরী করেছেন শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম শাহ। তিনি রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলে সমাজ বিজ্ঞান বিষয়ে শিক্ষকতা করেন। লাইব্রেরী তৈরী করার পর তিনি বুঝতে পেরেছেন যে নিজের অভাবই এখন অনেকের মধ্যে বিদ্যমান। কৃষি বিষয়ে কৃষকের মাঝে যে অভাব রয়েছে তা এখন উপলদ্ধি করা যায় কৃষি তথ্য পাঠাগার ও কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের মাধ্যমে।
তিন বিঘা জমির উপর স্থাপন করা হয়েছে কৃষি লাইব্রেরী এবং রোপন করা হয়েছে বিভিন্ন ফলজ ও ওষধি গাছ। লাইব্রেরী দেখাশুনা জন্য রয়েছে জোসনা খাতুন এবং বাগান পরিচর্যার দায়িত্বে রয়েছে আজাহার হোসেন ও  হযরত আলী নামে দুইজন কর্মী। কৃষি তথ্য পাঠাগারে কৃষি বিষয়ের উপর বিভিন্ন ধরনের বই সংরক্ষিত রয়েছে। কৃষকরা ইচ্ছে করলে বই পড়ে তার সমস্যার সমাধান পেতে পারেন। কৃষি বিষয়ে নতুন কিছু উদ্ভাবন হলে এলাকায় প্রজেক্টরের মাধ্যমে কৃষকদের দেখানো হয়। এতে কৃষকরা কৃষি বিষয়ে নতুন কিছু জানতে পারেন।
এছাড়া গবেষণা কেন্দ্রের মাধ্যমে কৃষি বিষয়ে সমস্যা সমাধান করা যায়। অনেক বিদেশী নাগরীক অস্ট্রেলিয়া, জাপান, ভারত, ফিলিপাইন থেকে এই প্রতিষ্ঠানে বেড়াতে এসেছেন। অস্ট্রেলিয়ার ইউনির্ভাসিটি প্রফেসর প্রার্থনাম এসেছিলেন বিষাক্ত একটি আগাছা নিয়ে। এবং কৃষকদের সাথে সেমিনার করেছেন। কৃষি তথ্য পাঠাগার ও কৃষি গবেষণা কেন্দ্র থেকে সুবিধা ভোগীদের সাথে কথা বলে জানা যায় বিভিন্ন তথ্য। গ্রামের কৃষক খন্দকার গোলাম রহমান জানান, আগে নিজেদের ইচ্ছেমত বা দোকানদারের পরামর্শে জমিতে সার, ওষধ দিতাম। ফসল রোপনের জন্য জমিতে কি পরিমান সার, ওষধ দিতে হবে এবং কৃষি লাইব্রেরীতে বই পড়ে ও শিক্ষকের কাছ থেকে পরামর্শ নিয়ে ব্যাপক সুবিধা পাচ্ছি। এখন আগের তুলনায় কৃষিতে খরচ মোটামুটি কম হচ্ছে ও ফলন ভাল হয়। কৃষক আব্দুল লতিফ জানান, এখান থেকে কৃষি বিষয়ে পরামর্শ নিয়ে উপকৃত হয়েছেন। কৃষি বিষয় নতুন কোন কিছু উদ্ভাবন হলে প্রজেক্টরের মাধ্যমে আমাদের দেখানো হয়। অবসর সময়ে লাইব্রেীতে এসে বই পড়ে কৃষি বিষয়ে অনেক কিছু জানতে পারি। এছাড়া মাছ চাষি শারফিন শাহা জানান, লাইব্রেরীতে যে কৃষি বিষয়ে বই আছে তা থেকে ব্যাপক সহযোগীতা পাই। এছাড়া গবেষণা কেন্দ্রের মাধ্যমে কৃষি বিষয়ে ও মাছ চাষে সমস্যার সমাধান করা হয়। এ লাইব্রেরী মাধ্যমে আমরা খুবই উপকৃত হচ্ছি।

নওগাঁয় কৃষি পাঠাগারের সুফল ভোগ করছেন কৃষকরাশাহ কৃষি তথ্য পাঠাগারের পরিচালক শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম শাহ জানান, ছোট থেকেই কৃষির সাথে সম্পৃক্ত। উদ্যেশ্য লাইব্রেরীর মাধ্যমে কৃষির সংযোগ ঘটানো। অনেক পরে বুঝতে পারলাম জেনেটিক্যালি সব ডেভলোপ হয়। কৃষি বিষয়ে আমার যত অভাব আছে তা আমি পূরণ করার চেষ্টা করছি। আমার মৃত্যুর পর সমাজের প্রয়োজন লোকজন এটিকে টিকিয়ে রাখবে। এটা বিশ্বাস করি। মানুষের মনে অনেক কিছু পরিকল্পনা থাকে। সবাই তো তা বস্তবায়ন করতে পারে না। আমি যে স্বপ্নটা বাস্তবায়ন করতে পেরেছি এটাই বড় কথা। তবে ২০০৮ সালে প্রতিষ্ঠানটি প্রাতিষ্ঠানিক রুপ দিতে পেরেছি। কৃষির উপর একটি বই লিখছি। তিনি আরো জানান, মানুষের প্রয়োজনে রাস্তা ঘাট, বাড়ী তৈরী তে অনেক ওষধি গাছপালা নষ্ট ও হারিয়ে গেছে। আমার স্বল্প জায়গায় কিছুটা হলেও তা সংরক্ষন করতে পেরেছি। কৃষকদের সুবিধার জন্য কৃষি পুঞ্জিকা প্রকাশ ও প্রতি মাসে কৃষি বিষয়ে সেমিনার হয় করা হয়।

Show More

News Desk

তিস্তা নিউজের নিউজ রুম থেকে সমস্ত বিভাগসহ বাংলাদেশের সর্বশেষ সংবাদ প্রকাশ করা হয়। আপনি যদি তিস্তানিউজ ২৪.কম এ প্রকাশের জন্য আমাদের ট্রেন্ডিং নিউজ প্রেরণ করতে চান তবে আসুন এখনই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আপনার নিউজটি আমাদের নিউজ রুম থেকে নিউজ ডেস্ক হিসাবে প্রকাশিত হবে। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদান্তে- আব্দুল লতিফ খান, সম্পাদক মন্ডলির সভাপতি।

Related Articles

Back to top button
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker