Featured

নীলফামারীতে সর্ট সার্কিটে ৩ গরু মারাগেছেঃ অর্ধশতাধিক মিটার পুড়ে ছাই

http://tistanews24.com/wp-content/uploads/2015/11/biddut_2.jpgনীলফামারী অফিস থেকে ইনজামাম-উল-হক নির্ণয়:  বিদ্যুৎ বিভাগের ১১ হাজার সঞ্চালন লাইনের সর্ট সার্কিটের কবলে পড়ে তিনটি গরু মারা গেছে। সেই সাথে অর্ধ শাতাধিক বাসাবাড়ির মিটার পুড়ে ছাই হয়েছে। ভাগ্যক্রমে বাসাবাড়ির মানুষজন বেঁচে গেলেও আহত হয়েছে ৩ জন।

শুক্রবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে নীলফামারীর ডোমার উপজেলার জোড়াবাড়ি ইউনিয়নে হলহলিয়া হাজ্বীপাড়া গ্রামে।একই সাথে তিনটি গরু মারা যাওয়ায় গরুর মালিক ওই গ্রামের মৃত বেনাই মিয়ার বিধবা স্ত্রী জরিনা বেওয়ার আহাজারীতে এলাকার পরিবেশ ভারী করেছে।ঘটনার পর খবর পেয়ে ডোমার বিদ্যুৎ বিভাগ ওই সঞ্চালন লাইনটি বন্ধ করে দিলে মানুষজন প্রাণে রক্ষা পায়।
এলাকাবাসীর অভিযোগ গত এক মাসে পূর্বেও  এলাকার বোতলগঞ্জ বাজার ও উক্ত গ্রামের একই ঘটনায় শতাধিক বাসাবাড়ির মিটার ও ৭টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই হয়েছিল। তারপরেও ডোমার বিদ্যুৎ বিভাগের টনক নড়েনি।
এলাকার রিপন ইসলাম মানিক জানান, রাতে হটাৎ করে  ৫০টি বাসাবাড়ীর বিদ্যুৎ মিটার গুলো বিস্ফোরিত হয়ে আগুনে লেগে যায়। ঘুমন্ত গ্রামের মানুষজন বিকট শব্দে জেগে ঘর থেকে বেরিয়ে নিরাপদে সরে যায়। এ সময় আহত হয় রূপালী, আইয়ুব আলী, মিনারুল। এ সময় জরিনা বেওয়ার বাড়ির গোয়াল ঘরে থাকা তিনটি গরু বিদ্যুতায়িত হয়ে মারা যায়। প্রায় এক লাখ টাকা মূল্যের গরু তিনটির মৃত্যুর কারনে জরিনা বেওয়া শোকের কাঁতর হয়ে পড়েছে। এজন্য এলাকাবাসী ডোমার বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজন কে দায়ি করে বিচার ও জরিনা বেওয়াকে ক্ষতিপুরন প্রদানের দাবি করেছে। এ ঘটনায় ডোমার আবাসিক প্রকৌশলী  আব্দুল মতিনের সাথে কথা বলা হলে তিনি  জানান  রাতে একজন গ্রাহক আমাকে মোবাইলে ঘটনাটি জানালে তাৎক্ষনিকভাবে ওই সঞ্চালন লাইনটি বন্ধ করে দেয়া হয়। ঘটনাটি শুনেছি। কিন্তু তি কারনে এ ঘটনা ঘটছে তা তদন্ত করে দেখা হবে।

Show More

News Desk

তিস্তা নিউজের নিউজ রুম থেকে সমস্ত বিভাগসহ বাংলাদেশের সর্বশেষ সংবাদ প্রকাশ করা হয়। আপনি যদি তিস্তানিউজ ২৪.কম এ প্রকাশের জন্য আমাদের ট্রেন্ডিং নিউজ প্রেরণ করতে চান তবে আসুন এখনই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আপনার নিউজটি আমাদের নিউজ রুম থেকে নিউজ ডেস্ক হিসাবে প্রকাশিত হবে। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদান্তে- আব্দুল লতিফ খান, সম্পাদক মন্ডলির সভাপতি।

Related Articles

Back to top button
Close