Featured

নীলফামারীর রামগঞ্জ ট্র্যাজেডির দুই বছর

বিশেষ প্রতিনিধি: ১৪ ডিসেম্বর সোমবার। দুই বছর আগের অর্থাৎ ২০১৩ সালের ১৪ ডিসেম্বর বিকাল ৪টায় নীলফামারী সদরের টুপামারী ইউনিয়নের রামগঞ্জ হাটে সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরের গাড়ি বহরে হামলা চালিয়ে আওয়ামী লীগের ৪ নেতা ও এক পথচারীসহ ৫ জনকে হত্যা করা হয়েছিল। http://tistanews24.com/wp-content/uploads/2015/12/ppp-22.jpgঘটনার দুই বছরেও মামলার চার্জশীট ভুক্ত এবং কথিত পলাতক অনেক হত্যাকারীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ায় ক্ষোভ  প্রকাশ করেছেন নিহতের স্বজনরা।
সেদিনের হত্যা কান্ডের শিকার যারা হন তারা হলেন টুপামারী ইউনিয়নের কৃষকলীগের সভাপতি খোরশেদ চৌধুরী, দুই ভাই ওই ইউনিয়নের যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফরহাদ শাহ ও ছাত্রলীগ কর্মী মুরাদ শাহ ও আওয়ামী লীগ কর্মী লেবু মিয়া । এদের ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে এবং হাত পায়ের রগ কেটে নির্মম ভাবে হত্যা করা হয়েছিল। এ সময় পথচারী বাঁশ বিক্রেতা আবু বক্কর সিদ্দিকও রা পায়নি হামলাকারীদের হাত থেকে। তিনিও হত্যার শিকার হন। এ ছাড়া ওই ঘটনায় আহতদের মধ্যে হাত বা পা, চোখ অচল হয়ে পঙ্গুত্ব বরণ করে বেঁচে আছেন ছাত্রলীগ কর্মী রাসেল আমিন স্বপন, রুহুল আমিন শিপন, যুবলীগ নেতা মানিক হোসেন, ছাত্রলীগের জাহাঙ্গীর ওয়াসী, জ্যোতিস চন্দ্র রায়, বাদশা সহ অনেকে। অপর দিকে গুরুত্ব আহত যুবলীগ নেতা মাহাবুল গত এক বছর দুই মাস আগে মৃত্যু বরন করেন। দুই বছরে সে দিনের কথা আজও ভুলতে পারেনি তারা।
রামগঞ্জহাট এলাকায় জামায়াত শিবিরের ওই হামলার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ ১৪১ রাউন্ড সট গান, ৩৭ রাউন্ড কাঁদানে গ্যাস নিপে করেছিল বলে পুলিশের খাতায় লিপিবন্ধ করা হয় ।
এ ঘটনায় নীলফামারী থানার ওসি (তদন্ত ) বাবুল আকতার বাদী হয়ে মামলা করেন।  আদালত সুত্রে জানা যায় ওই ঘটনায় পুলিশ চলতি বছরের ১১ মার্চ আদালতে ২১৭ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে। আসামীদের মধ্যে জেলা কারাগারে বন্দী রয়েছে ৭৮ জন, উচ্চ আদালত হতে জামিনে রয়েছে ৫৬ জন, পলাতক রয়েছে জেলা জামায়াতের সেক্রেটারী প্রভাষক খায়রুল আনাম, জেলা জামায়াতের সহকারি সেক্রেটারী অধ্যাপক আবু হেলাল টুপামারী জামায়াতের নেতা মালেক কাজী, আ,ন,ম মতিউর রহমান, বিএনপি নেতা খালেক মহাজন সহ ৯৩ জন।
এদিকে জানা যায় নিহত ওই ৫ পরিবারের মাঝে ইতো মধ্যে সরকারের পক্ষে ৪৫ লাখ টাকার অনুদান প্রদান করা হয়। রামগঞ্জ ট্রাজেডির দুই বছর স্মরনেে আজ সোমবার (১৪ ডিসেম্বর) টুপামারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও তার সকল অঙ্গসংগঠন রামগঞ্জ হাট এলাকায় বিভিন্ন কর্মসুচী গ্রহন করেছে। কর্মসুচীর মধ্যে রয়েছে কোরআন খানী, মিলাদ মাহফিল ও দোয়া, মৌন মিছিল ও স্মরন সভা। এ সব কর্মসুচীতে অংশ নেবেন সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর এমপিসহ জেলা উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ সহ সকল অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী। এ ছাড়া হত্যার শিকার ৫ পরিবারের পওে নিজ নিজ বাসভবনে দ্বিতীয় মৃত্যু বার্ষিকী পালন করা হবে।
http://tistanews24.com/wp-content/uploads/2015/12/nur-ptb.jpgসে দিনের ঘটনার কথা বলতে গিয়ে  কেঁদে উঠে সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর এমপি বলেন সেদিন যে ভাবে তারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে হামলা চালায় তা ৭১ এর স্বাধীনতা যুদ্ধকে হারমানায়। আমাকে ভালবেসে যারা পরাজিত শক্তির হাতে আমার জীবন বাঁচিয়ে নিজের জীবন বির্সজন দিয়েছেন তাদের ঋন আমি জীবনেও পরিশোধ করতে পারবোনা।
আসাদুজ্জামান নুর জানান মানববতা বিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত জামায়াত নেতা কাদের মোলার ফাঁসীর রায় কার্যকর হওয়ার পর সেই রাতে (১২ ডিসেম্বর/২০১৩) জামায়াত শিবির নীলফামারী জেলা সদরের বিভিন্ন গ্রামে তান্ডবলীলা চালায়। হিন্দু সম্প্রদায়ের বাসাবাড়ি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে জ্বালিয়ে দেয়। এ সব ঘটনা সরেজমিনে দেখতে তিনি ১৪ ডিসেম্বর সকাল থেকে পলাশবাড়ির তরুনীবাড়ি, হরতকীতলা লক্ষ্মীচাপ ইউনিয়নের কাছারীবাজার শীশাতলী ও লক্ষ্মীচাপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শ্যাম চরন রায়ের বাড়ি পরিদর্শন ও পথসভা শেষে বিকাল সাড়ে ৪টার দিয়ে নীলফামারী শহরে ফিরছিলাম। এ সময় জেলা সদরের টুপামারী ইউনিয়নের রামগঞ্জ হাট হয়ে আসার পথে দেখা যায় রামগঞ্জ ব্রীজের কাছে রাস্তা কাটা হয়েছে। ফলে তার বহনকারী মাইক্রোবাসটি সেখানে আটকা পড়ে। এ সময় পেছন দিক থেকে জামায়াত শিবির ও বিএনপির নেতা কর্মীরা তার গাড়ী ল্য করে ইটপাটকেল ছুঁড়তে থাকে। এরপর সামনে দিক থেকে জামায়াত শিবিরের আরেকটি দল এগিয়ে আসতে থাকে।এ সময় হামলাকারীরা হিন্দু সম্প্রদায়ের অর্ধশতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ৪০ টি মটরসাইকেল ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত নেতাকর্মীদের বাসাবাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। এ সময় তাদের হাতে নিহত হয় আওয়ামী লীগের ৪ নেতা কর্মীসহ ৫ জন।
নিহত মুরাদ ও ফরহাদের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় ওই বাড়িতে চলছে দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকীর প্রস্তুতি।
এই দুই ভাইয়ের মা মেরিনা বেগম দুই ছেলের শোকে এখনও কাতর। দুই ছেলের ছবি হাতে নিয়ে চলছে তার আহাজারী।
নুরের ওপর হামলার নেপথ্যের কারন হিসাবে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন স¤পাদক এ্যাডঃ মমতাজুল হক মনে করেন নুর ভাই একজন বরেন্য সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব। দেশ বিদেশে তার প্রচুর খ্যাতি সু-নাম। মৌলবাদের বিরুদ্ধে তার অবস্থান অত্যন্ত সুদৃঢ় ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান। মুক্তিযুদ্ধের স্বপরে শক্তি হিসাবে আসাদুজ্জামান নুর আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত।
২০০১ সাল থেকে তিনি নীলফামারী সদর আসনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য হিসাবে বিজয়ী হয়ে আসছেন। প্রতিটি নির্বাচনে তার প্রধান প্রতিদ্বন্দি ছিল জামায়াতে ইসলামীর প্রার্থী। নুর ভাই অসহায় মানুষজনের বিপদে আপদে সহযোগীতার হাত অনেক লম্বা। প্রতিমাসে বিনা মুল্যে স্বাস্থ্য সেবার ক্যা¤প চালাতেন জেলা সদরের ১৫টি ইউনিয়নে। রাজধানীর নামীদামী চিকিৎসকরা আসাদুজ্জামান নুরের ডাকে সাড়া দিয়ে নীলফামারী এসে বিনামূল্যে এই ক্যা¤প পরিচালনা করে দুস্থ্য অসহায়দের ব্যবস্থাপত্র সহ বিনামুল্যে ঔষধ সরবরাহ করেন। এর পাশাপাশি যাদের থাকার ঘর নেই তাদের ঘর বানিয়ে দিচ্ছিন। অসংখ্য বেকার যুবক যুবতী প্রতিবন্ধীদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে প্রদান করেছেন এবং করছেন রিক্সা,ভ্যান,হুইলচেয়ার । এ ছাড়া প্রতি বছর শীতবস্ত্র বিতরন অব্যাহত রেখেছেন। এমন একজন জনপ্রিয় ব্যাক্তি নুরকে পথের কাটা হিসাবে সরিয়ে দিতে এবং আসনটি দখলে নিতে রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় নীলফামারীর রামগঞ্জহাট এলাকায় তার গাড়ীর বহরে হামলা চালায় ১৮ দলের বিএনপি ও জামায়াত শিবির নেতা কর্মীরা।
সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন স¤পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান আবুজার রহমান বলেন নুর ভাই আমাদের তথা নীলফামারীসহ গোটা দেশ এমন কি আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে বিস্তৃত এক সু-নাম ধন্য ব্যাক্তি। তাকে হত্যার পরিকল্পনা করেছিল ওরা। আসাদুজ্জামান নুর কে পথের কাটা মনে করেই হত্যার উদ্যেশে এই হামলা চালানো হয়। তাকে বাঁচাতে এগিয়ে এসে প্রাণ হারায় নীলফামারীর চার আওয়ামী লীগ নেতা সহ ৫জন।
জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ বলেন, জেলা সদরের পলাশবাড়ী ও লক্ষ্মীচাপ ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা, মালামাল লুট এবং অগ্নিসংযোগে তিগ্রস্থদের পাশে দাঁড়ানোর কারণে প্তি হয়ে ওঠে স্বাধীনতাবিরোধী মৌলবাদী জামায়াত-শিবির চক্র। এ কারণে নুর ভাইকে হত্যার উদ্দেশ্যে ওই হামলা চালায় চক্রটি।

Show More

News Desk

তিস্তা নিউজের নিউজ রুম থেকে সমস্ত বিভাগসহ বাংলাদেশের সর্বশেষ সংবাদ প্রকাশ করা হয়। আপনি যদি তিস্তানিউজ ২৪.কম এ প্রকাশের জন্য আমাদের ট্রেন্ডিং নিউজ প্রেরণ করতে চান তবে আসুন এখনই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আপনার নিউজটি আমাদের নিউজ রুম থেকে নিউজ ডেস্ক হিসাবে প্রকাশিত হবে। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদান্তে- আব্দুল লতিফ খান, সম্পাদক মন্ডলির সভাপতি।

Related Articles

Back to top button
Close