বৃহত্তর রংপুর

যাত্রাপুর ইউপি’র নির্বাচনে নৌকার মাঝি হিসেবে কাকে দেখতে চায় তৃনমুল আ’লীগ

কুড়িগ্রাম থেকে মোঃ রফিকুল ইসলাম: কুড়িগ্রামের যাত্রাপুর ইউনিয়ন পরিষদের আসন্ন নির্বাচনে জনপ্রিয় নেতা শাহাজামাল সরকারকে নৌকার মাঝি হিসেবে দেখতে চায় তৃনমুল আওয়ামীলীগের নেতা-কমী ও সমর্থক।

যাত্রাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শাহাজামাল সরকার ১৯৮২ সাল হতে আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে যুক্ত থেকে নৌকা মার্কার পক্ষে জনমত গঠনে কাজ করে যাচ্ছে।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারন করে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের সৈনিক হিসেবে তিনি এলাকার উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে।

ব্যক্তি উদ্যোগে এলাকায় তিনি স্কুল, মাদ্রাসা, মসজিদ সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। করোনাকালীন সময়ে কুড়িগ্রাম জেলায় রাজনৈতিক নেতা হিসেবে শাহাজামাল সরকার সর্ব প্রথম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ঘোষনা দিয়ে দরিদ্র মানুষের পাশে খাদ্য ওষুধ ও অর্থ বিতরন করেন।

সাধারন নেতারা যখন করোনা জনিত কারনে জীবনের নিরাপত্তায় অনেকটা নিজেদের গুটিয়ে নিয়ে ছিলেন এমন সময় আওয়ামীলীগের তৃনমুল নেতা কমী সমর্থক ও সাধারন জনগনের পাশে ছিলেন শাহাজামাল সরকার।

এ কারনে তৃনমুল আওয়ামীলীগের নেতা কমীরা এবার যাত্রাপুর ইউনিয়ন পরিষদের আসন্ন নির্বাচনে শাহাজামাল সরকারকে নৌকার মাঝি হিসেবে দেখতে চায়। তাকে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা মার্কার প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিতে আওয়ামীলীগের সভানেত্রী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট জোর দাবি জানিয়েছে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

শাহাজামাল সরকার যাত্রাপুর ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকায় গোয়াইলপুরী নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, গোয়াইলপুরী ফুলচান্দ আলী দারুল উলুম হাফেজিয়া মাদরাসা, গোয়াইলপুরী কবরস্থান, গোয়াইলপুরী জামে মসজিদসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। তার অক্লান্ত পরিশ্রমের কারণে গোয়াইলপুরী এলাকাসহ প্রত্যন্ত চরাঞ্চলের কোমলমতি শিশুরা ধর্মীয় শিক্ষা ও আধুনিক বাংলা শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে এলাকার সুনাম বয়ে আনছেন। বন্যা, খরা, মঙ্গা যে কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগে যাত্রাপুর ইউনিয়নে হতদরিদ্র মানুষের পাশে সবার আগে এগিয়ে আসেন যাত্রাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাজামাল সরকার।

তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতি করতে গিয়ে জামাত-বিএনপি সরকার আমলে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়েছেন। বিগত বিএনপি সরকার আমলে বিএনপি নেতাকর্মী কর্তৃক শাহাজামাল সরকার সন্ত্রাসী ক্যাডার দ্বারা একাধিকবার নির্যাতনের শিকার হন।

যাত্রাপুর ইউনিয়নে যখন আওয়ামী লীগের কমিটি করার মতো লোক খুজে পাওয়া যায়নি এরকম সময়ে শাহাজামাল সরকার আওয়ামী লীগের হাল ধরে দলকে শক্তিশালী করতে নিরলস ভাবে পরিশ্রম করেছেন।

এ কারণে জাতীয় পার্টির দুর্গখ্যাত যাত্রাপুর ইউনিয়নে বর্তমানে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীর সংখ্যা অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছে।

তৃণমুল আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী, সমর্থকরা মনে করে যাত্রাপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের বর্তমান অবস্থা তৈরির পিছনে মুল কারিগর শাহাজামাল সরকার। এ কারণে আগামী নির্বাচনে শাহাজামাল সরকারকে স্থানীয় নেতাকর্মীরা নৌকার মাঝি হিসেবে দেখতে চায়।

বিভিন্ন বিষয় নিয়ে যাত্রাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাজামাল সরকার জানায়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করছি।

আওয়ামী লীগ করতে গিয়ে জেল, জুলুম, হুলিয়া উপেক্ষা করে দল করে আসছি।

দেশরত্ন মমতাময়ী মা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আধুনিক ডিজিটাল সোনার বাংলা বিনির্মাণে কাজ করে যাচ্ছি। গ্রাম হবে শহর এটাকেই বাস্তবায়নের জন্য প্রত্যন্ত চর যাত্রাপুরে দরিদ্র মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে সর্বাত্ম চেষ্টা করে যাচ্ছি।

Show More

News Desk

তিস্তা নিউজের নিউজ রুম থেকে সমস্ত বিভাগসহ বাংলাদেশের সর্বশেষ সংবাদ প্রকাশ করা হয়। আপনি যদি তিস্তানিউজ ২৪.কম এ প্রকাশের জন্য আমাদের ট্রেন্ডিং নিউজ প্রেরণ করতে চান তবে আসুন এখনই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আপনার নিউজটি আমাদের নিউজ রুম থেকে নিউজ ডেস্ক হিসাবে প্রকাশিত হবে। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদান্তে- সম্পাদক

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker