নীলফামারী

সৈয়দপুরে নব বিবাহিত যুবকের পুরুষাঙ্গ কর্তন : স্ত্রী ও শাশুড়িকে থানায় জিজ্ঞাসাবাদ

মিজানুর রহমান মিলন,সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি: নীলফামারীর সৈয়দপুরে বিয়ের ২৪ ঘন্টার মাথায় যুবক নুর আলম সবুজ (২৫) নামে এক যুবকের পুরুষাঙ্গ কেটে নিয়েছে দূর্বৃত্তরা। পরে স্থানীয়দের সংবাদ পেয়ে অজ্ঞান অবস্থায় ওই যুবককে উদ্ধারকরেছে সৈয়দপুর থানা পুলিশ। বুধবার গভীর রাতে ওই যুবকের বাড়ি থেকে প্রায় ৩শ গজ দূরে নির্জন স্থান থেকে তাঁকে উদ্ধার করা হয়।

আহত যুবক

পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এ ঘটনায় রাতেই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই যুবকের স্ত্রী ও শাশুড়ি কামারপুকুর ইউনিয়নের সংরক্ষিত ৭,৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সেলিনা বেগমকে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। নুর আলম সবুজ কামারপুকুর ইউনিয়নের ধলাগাছ পশ্চিমপাড়ার মোহাম্মদ আলীর পুত্র।
পুলিশ এ ঘটনায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। রহস্য উদঘাটনে এবং জড়িতদের সনাক্ত ও গ্রেফতার করতে কাজ শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবুল হাসনাত খান।
পুলিশ ও এলাকার লোকজন জানান,গত মঙ্গলবার রাতে ময়মনসিংহ ক্যাডেট কলেজের জুনিয়র কেয়ারটেকার নুর আলম সবুজের সাথে একই ইউনিয়নের আইসঢাল হাজীপাড়া গ্রামের রেজাউল হক ও সংরক্ষিত আসনের ইউপি সদস্যা সেলিনা বেগমের বাড়িতে তাদের কলেজ পড়ুয়া মেয়ে রিজভী আক্তারকে সকলের উপস্থিতিতে সাড়ে ১৮ লাখ টাকা দেনমোহরে বিয়ে করেন। তবে এ বিয়ের বিষয়টি তার বাবা মা জানলেও তেমন সম্মতি ছিল না।
যুবক সবুজের বড় শ্যালক রিপন জানান, বুধবার রাতে সবুজসহ তার অপর দুই বন্ধু খওয়া দাওয়া শেষে হাসিমুখে রাত ১২ টার দিকে তিনজনই তাদের বাড়ি থেকে বের হয়ে নিজ বাড়ির উদ্দেশ্য রওয়ানা দেয়। এরপর কিভাবে এঘটনা ঘটেছে তা জানেন না। দূর্বৃত্তদের হামলায় আহত সবুজের উদ্ধৃতি দিয়ে তার ফুফাতো ভাই ফয়েজ আহমেদ জানান, ঘটনার রাতে সুবজ ও তার দুই সঙ্গী বাড়ির কাছাকাছি আসে। এসময় দুইসঙ্গী নিজ নিজ বাসায় চলে যায়। পরে সবুজ তার বাড়ির দিকে রওয়ানা দিলে আগে থেকে সেখানে লুকিয়ে থাকা ১৮ থেকে ২০ জনের একদল দূর্বৃত্ত তাকে আটক করে বাড়ির পাশে নির্জন স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে তারা সবুজের পুরুষাঙ্গের উপরিভাগ কেটে দেয়। এরপরেই সে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। স্থানীয়রা জানান বিয়ের ২৪ ঘন্টার মধ্যে কেন এমন ঘটনায় তারা হতবাক। তাদের ধারণা নারীঘটিত কোন কারণ থাকতে পারে। এদিকে এঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রাতেই সবুজের স্ত্রী রেজভী আক্তার ও শাশুড়ি,কামারপুকুর ইউনিয়নের সংরক্ষিত আসনের ইউপি সদস্য সেলিনা বেগমকে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। পরে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বিকেলে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সবুজের জবানবন্দি নিতে থানা পুলিশের একটি দল সেখানে অবস্থান করছে।
এব্যাপারে জানতে চাইলে সৈয়দপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল বলেন ঘটনার রহস্য উদঘাটনে কয়েকটি বিষয় নিয়ে তারা কাজ শুরু করেছেন। খুব শিগগির এর রহস্য উদঘাটন হবে বলে জানান তিনি। কামারপুকুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. রেজাউল করিম লোকমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন কি কারণে এমন ঘটেছে তা বলা যাচ্ছেনা। তবে পুলিশই বিষয়টি বের করে আনতে পারবে। এব্যাপারে থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবুল হাসনাত খান বলেন, ঘটনার রহস্য উদঘাটন এবং জড়িতদের আইনের আওতায় আনতে কাজ শুরু করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে।

Show More

News Desk

তিস্তা নিউজের নিউজ রুম থেকে সমস্ত বিভাগসহ বাংলাদেশের সর্বশেষ সংবাদ প্রকাশ করা হয়। আপনি যদি তিস্তানিউজ ২৪.কম এ প্রকাশের জন্য আমাদের ট্রেন্ডিং নিউজ প্রেরণ করতে চান তবে আসুন এখনই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আপনার নিউজটি আমাদের নিউজ রুম থেকে নিউজ ডেস্ক হিসাবে প্রকাশিত হবে। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদান্তে- আব্দুল লতিফ খান, সম্পাদক মন্ডলির সভাপতি।

Related Articles

Back to top button
Close